তন্ময় সরদার ও সানু কর্মকার এর ইন্ডাস্ট্রিতে টিকে থাকার লড়াই এর গল্প

0
197

 নিজস্ব সংবাদদাতা : একদিকে টালিগঞ্জ ইন্ডাস্ট্রিতে মহা তারকাদের ধুমধাম। তার‌ই মধ্যে ইন্ডাস্ট্রির দরজায় দরজায় ঘুরে চলেছে দুই কিশোর সুযোগ পাবার আশায়। স্বপ্ন একটাই ভালো গান বাঁধতে হবে। তন্ময় সরদার ও সানু কর্মকার আর সানু কর্মকার। জেনে নেওয়া যাক তাদের গল্প।

গীতিকার তন্ময় সরদার ছোটবেলা থেকেই মেধাবী ছাত্র ছিলেন।শিক্ষক সুব্রত কুমার মনির তত্বাবধানে, মনিপুর বাঁশতলা নামক একটি ছোট্ট গ্রামে।
বিধান চন্দ্র কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে Agriculture agronomy নিয়ে বি. এস. সি পাস করে মাত্র ২২ বছর বয়সে ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়ায় অফিসার হয়ে জয়েন করেন। এত কিছুর মধ্যেই ও গানের নেশা তার পিছু ছাড়লো না। কলেজ লাইফে পন্ডিত অজয় চক্রবর্তীর প্রিয় শিষ্য শাওন চক্রবর্তীর সাথে বসতো গানের আড্ডা। ” লিখবো চিঠি” হোষ্টেল সঙ্গেতে”।


উনার সাথে পরিচয় হয় আরেক গান পাগল সানু কর্মকারের সাথে। দক্ষিণ বারাসাতে মায়ের সাথে অত্যন্ত দারিদ্র্যতার সাথে বড়ো হয়। তথাকথিত গানবাজনা শেখা পয়সার অভাবে হয় নি। হঠাৎ দুজনের বন্ধুত্ব থেকে গান বাঁধা।” মন ছুঁয়ে দেখো” থেকে শুরু করে একের পর এক গান লেখেন তন্ময় সরদার আর সুর দেন শানু কর্মকার। গান ও করেন সানু কর্মকার।

তারপর বিখ্যাত হাওয়াইন বাদক সুনীল গাঙ্গুলীর ছাত্র, বি. কে, ঘোষের সুরে বাঁধলেন তন্ময়ের কথায় সানু গাইলো ” না না বাঁধা দেবো না” ” এই রাত মধু জোৎস্নায়”। এরপর রিলিজ হলো রোমান্টিক গান “আশকারা ” । কথা দিয়েছিলেন তন্ময় সর্দার আর গান গাইলেন সানু কর্মকার আর সুচিস্মিতা ঘোষ।
গানগুলিতে অসাধারণ মিউজিক এরেন্জমেন্ট করেছেন সুদর্শন দাস। তারপর গীতিকার তন্ময় , সুর ও গায়ক সুদর্শন দাস ” কি ভুল ছিল” গানটি বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছিল।

কথিত আছে প্রতিভা কখনো চাপা থাকে না। একদিন না একদিন প্রকাশ ঘটবেই। তেমনটি হলো এই দুই কিশোরের। কিছুদিন আগেই বিখ্যাত সঙ্গীত শিল্পী মিস জোজো গাইলেন” ভালোবাসা হারে না”।

কথা তন্ময় সরদার, সুর নবারুণ দাশগুপ্ত আর ডুয়েট সিঙ্গার সানু কর্মকার।
কিছুদিনের মধ্যেই রিলিজ পেতে চলেছে ” ওয়াল পেপার সংগ” যা মানুষকে টুম্পা সোনার মতো আনন্দ দেয়। গানের কথা লিখেছেন তন্ময় সরদার আর গেয়েছেন সানু কর্মকার। ডিরেক্টর অমিতাভ ব্যানার্জীর হাত ধরে তাদের একের পর এক কাজ এগিয়ে চলছে। অমিতাভ ব্যানার্জি “পান্থশালা রহস্য” শর্ট ফিল্মের গান ” তোর কাছে আসছি রোজ” তন্ময় সরদারের লেখা নবারুণ দাশগুপ্তের সুরে, গানটি গেয়েছেন সারেগামা খ্যাত অরিত্র দাশগুপ্ত আর স্বর্ণালী বোস।

অনুপ্রেরণার কথা বলতে গিয়ে তন্ময় সরদার বলেছেন তার বাবা সুশান্ত কুমার সরদার  , মা অঞ্জলি সরদার, স্ত্রী নিবেদিতা সরদার অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন।

সানু কর্মকার মা রীতা , দাদা বনমালী কর্মকার, রূপা কর্মকারকেই অনুপ্রেরণার উৎস হিসেবে সামনে রাখেন। বন্ধু মানস মন্ডলকেই প্রতি মুহূর্তে পাশে পাবার কথা বলেছেন। বর্তমানে সানু কে. র নামে কাজ করে।

তারা দুজনেই বুঝিয়েছেন পেশা কখনোই নেশা থেকে দূর রাখতে পারে না। টলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে পা রাখার জন্য তাদের এই সংগ্রামকে কুর্নিশ জানাই।

তন্ময় সরদার ও সানু কর্মকার এর সফল জীবনের জন্য টলি রিপোর্টারের তরফ থেকে শুভকামনা রইল৷

বিনোদনের পাশাপাশি দর্শকদের সচেতনতা সব ক্ষেত্রেই ভালো থাকার পাসওয়ার্ড টলি রিপোর্টার। পাশে থাকুন, সাথে থাকুন।

 

লিরিক্স শুভজিৎ ঘোষাল কম্পোজার ও সিঙ্গার সানু কর্মকার

 

লিরিক্স এন্ড কম্পোজার সত্যম ,সিঙ্গার সানু কর্মকার ও কুহেলি মাইতি

লিরিক্স মানস মন্ডল ,কম্পোজার সানু কর্মকার ,সিঙ্গার অভিষেক চ্যাটার্জী ও কুহেলি মাইতি.

Google search engine

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here